AlokitoBangla
  • ঢাকা রবিবার, ২৫ জুলাই, ২০২১, ১০ শ্রাবণ ১৪২৮
আলোচিত মিতু হত্যা

দুই সন্তানকে আদালতের হাজির করতে নির্দেশ


FavIcon
চট্টগ্রাম,প্রতিবেদক:
প্রকাশিত: জুন ১৩, ২০২১, ১০:৩৩ পিএম
দুই সন্তানকে আদালতের হাজির করতে নির্দেশ
দুই সন্তানকে আদালতের হাজির করতে নির্দেশ

চট্টগ্রামের আলোচিত মিতু হত্যা মামলায় মিতু-বাবুলের দুই সন্তানকে আগামী ১৫ দিনের মধ্যে পিবিআই কার্যালয়ে হাজির করতে নির্দেশ দিয়েছেন আদালত।রোববার চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট মেহনাজ রহমানের আদালত এ আদেশ দেন। পিবিআই একাধিকবার এ দুই সন্তানের সঙ্গে দেখা করে কথা বলার চেষ্টা করলেও ব্যর্থ হয়েছে। তার পরই আদালতের দ্বারস্থ হয়েছে পিবিআই।মামলার তদন্ত কর্মকর্তা পিবিআই ইন্সপেক্টর সন্তোষ কুমার চাকমা বলেন, মিতু হত্যা মামলার বিষয়ে কথা বলার জন্য মিতুর দুই সন্তানের সঙ্গে বেশ কয়েকবার দেখা করার জন্য আসামি বাবুল আক্তারের বাবা ও ভাইয়ের সঙ্গে যোগাযোগ করেছি। বারবারই তারা এড়িয়ে গেছেন। মামলার তদন্তের স্বার্থে দুই সন্তানের সঙ্গে কথা বলাটা জরুরি। তাই মিতুর সন্তানদের সঙ্গে কথা বলার অনুমতি চেয়ে আদালতে আবেদন করি। শুনানি শেষে আদালত আগামী ১৫ দিনের মধ্যে বাবুল আক্তারের বাবা ও ভাইকে মিতুর দুই সন্তানকে পিবিআই কার্যালয়ে হাজির করতে নির্দেশ দিয়েছেন।স্ত্রী মাহমুদা খানম মিতু খুনের মামলায় বাবুল আক্তারকে গত ১৭ মে চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আদালত কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন। এর আগে তিনি স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিতে রাজি হলেও শেষ মুহূর্তে এসে মতামত বদল করেন এবং স্বীকারোক্তি দিতে অস্বীকৃতি জানান। তবে রিমান্ডে জিজ্ঞাসাবাদে বাবুল মিতুকে খুনের কথা স্বীকার করেছেন বলে দাবি করেছে পিবিআই।২০১৬ সালের ৫ জুন সকালে চট্টগ্রাম নগরীর ও আর নিজাম রোডে ছেলেকে স্কুলবাসে তুলে দিতে যাওয়ার পথে গুলি ও ছুরিকাঘাতে নিহত হন তৎকালীন পুলিশ সুপার বাবুল আক্তারের স্ত্রী মাহমুদা খানম মিতু। তার ছেলের সামনে তাকে খুন করা হয়। এ ঘটনায় বাবুল আক্তার বাদী হয়ে পাঁচলাইশ থানায় হত্যা মামলা করেছিলেন। পরে পিবিআই তদন্ত করে এ মামলায় বাবুল আক্তারের খুনের সম্পৃক্ততা পাওয়ায় মিতুর বাবা মোশাররফ হোসেন বাদী হয়ে নতুন করে আটজনকে আসামি করে পাঁচলাইশ থানায় হত্যা মামলা করেছেন। সে মামলার এক নম্বর আসামি বাবুল আক্তার।

 

 

Side banner