AlokitoBangla
  • ঢাকা সোমবার, ২৪ জানুয়ারি, ২০২২, ১১ মাঘ ১৪২৮
নির্বাচনী সহিংসতা

গান্ধাইল ইউনিয়নে বিজয় প্রার্থীকে হত্যার হুমকির অভিযোগ উঠেছে পরাজিত প্রার্থীর বিরুদ্ধে


FavIcon
কে,এম, মাসুদ রানা:
প্রকাশিত: জানুয়ারি ৮, ২০২২, ০৯:১৭ পিএম
গান্ধাইল ইউনিয়নে বিজয় প্রার্থীকে হত্যার হুমকির  অভিযোগ উঠেছে পরাজিত প্রার্থীর বিরুদ্ধে
গান্ধাইল ইউনিয়নে বিজয় প্রার্থীকে হত্যার হুমকির অভিযোগ উঠেছে পরাজিত প্রার্থীর বিরুদ্ধে

গান্ধাইল ইউনিয়ন পরিষদের ৮ নং ওয়ার্ডের পরাজিত প্রার্থী (টিউবয়েল প্রতীক) মো. রেজাউল করিম শফি পরাজয়ের গ্লানি সহ্য করতে না পেরে বিজয়ী প্রার্থীকে  হত্যার হুমকি দেবার অভিযোগ উঠেছে। এই ঘটনায় বিজয়ী প্রার্থী ও তার সমর্থকরা নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছেন। বিষয়টি আমলে নিয়ে পরিস্থিতি শান্ত করার আহবান জানিয়েছেন এলাকাবাসি। এ বিষয়ে বিজয়ী প্রার্থী বাদী হয়ে কাজিপুর থানায় একটি একটি সাধারন ডায়েরী করেছেন।গত
শুক্রবার(৭ ডিসেম্বর) রাতে বিজয়ী প্রার্থী (মোরগ প্রতীক) মো. কামরুল ইসলামকে হত্যার হুমকি দিয়েছে বলে টিকরাভিটা কাচিহারা গ্রামের মৃত ইসমাইল হোসেনের ছেলে মো. ইসাহাক সরকারসহ একাধিক ব্যক্তি বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।কাজিপুর উপজেলার ৩ নং গান্ধাইল ইউনিয়নের ৮ নং ওয়ার্ডের  নির্বাচনী সহিংসতার অবসান ঘটেনি। ৫ জানুয়ারী ৮টা হতে ৪টা পর্যন্ত শান্তিপুর্ন ভাবে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়।১৩০ ভোটের ব্যবধানে  (মোরগ প্রতীক) মো.কামরুল ইসলামের বিজয়ের তথ্য প্রিজাইটিং অফিসার প্রকাশ করার আগেই পোলিং এজেন্টদের মাধ্যমে রেজাউল করিম শফি জানতে পারলে তার সমর্থকরা বিশৃংখরার সৃষ্টি ও মারপিটের ঘটনা ঘটায়। মারপিটে মো. আব্দুর রাজ্জাক(৪৫), মো. আব্দুল হামিদ জিতু (৬০),মো. চান মিয়া (৬৫),মো. সুলতান (৫৫) মো. দুদু মিয়া(৫২) ,মো. মোতাহার আলী (৪৫) ও মো. জেল হোসেন (৪৭) আহত হয়। আহতদের শরীরের যন্ত্রনা শেষ হতে না হতেই পুনরায় বিজয়ী প্রার্থীকে হত্যার হুমকির অভিযোগ উঠছে। এ ঘটনায় কামরুল ইসলাম বাদী হয়ে কাজিপুর থানায় একটি সাধারন ডায়েরী করেছেন বলে জানা যায়। বিষয়টি নিয়ে বিজয়ী প্রার্থী ও তার সমর্থকদের মাঝে আতংক  বিরাজ করছে। বিষয়টি তদন্তপুর্বক ব্যবস্থা গ্রহনের দাবী জানিয়েছেন এলাকাবাসি।

 

Side banner