AlokitoBangla
  • ঢাকা রবিবার, ২৪ অক্টোবর, ২০২১, ৯ কার্তিক ১৪২৮

দেশের প্রথম ওয়ান-স্টপ যক্ষ্মা সেবা কেন্দ্র উদ্বোধন


FavIcon
আলোকিত বাংলা,প্রতিবেদক:
প্রকাশিত: সেপ্টেম্বর ২১, ২০২১, ০৮:১৯ পিএম
দেশের প্রথম ওয়ান-স্টপ যক্ষ্মা সেবা কেন্দ্র উদ্বোধন
জাহিদ মালেক ও রবার্ট আর্ল মিলার

রাজধানীর শ্যামলীতে দেশের প্রথম ওয়ান-স্টপ যক্ষ্মা (টিবি) সেবা কেন্দ্রের উদ্বোধন করা হয়েছে। মঙ্গলবার (২১ সেপ্টেম্বর) যৌথভাবে এটির উদ্বোধন করেছেন মার্কিন রাষ্ট্রদূত রবার্ট আর্ল মিলার, স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণমন্ত্রী জাহিদ মালেক এবং যুক্তরাষ্ট্রের আন্তর্জাতিক উন্নয়ন সংস্থা ইউএসএআইডি-র ডেপুটি মিশন ডিরেক্টর র‍্যান্ডি আলী। এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে ঢাকাস্থ মার্কিন দূতাবাস জানিয়েছে, যুক্তরাষ্ট্রের বিনিয়োগে ও ইউএসএআইডি-র সহায়তায় ঢাকার শ্যামলীতে অবস্থিত ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট যক্ষ্মা (টিবি) হাসপাতালকে একই ছাদের নিচে সকল ধরনের যক্ষ্মা পরীক্ষা, নির্ণয় ও চিকিৎসা করার সর্বাধুনিক স্বাস্থ্যকেন্দ্রে রূপান্তরিত করা হয়েছে। এটিকে সর্বাধুনিক পরীক্ষা করার ব্যবস্থা ও ল্যাবরেটরি যন্ত্রপাতি দ্বারা সজ্জিত করা হয়েছে।এছাড়াও ইউএসএআইডি-র অ্যালায়েন্স ফর কমব্যাটিং টিবি (যক্ষ্মা মোকাবিলায় জোট) প্রকল্পের অধীনে বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকদের যক্ষ্মা রোগ পরীক্ষা ও নির্ণয় করা। বিশেষ করে বহু ওষুধ প্রতিরোধী যক্ষ্মা পরীক্ষা ও নির্ণয় এবং সব ধরনের যক্ষ্মা রোগীদের নিরাপদ ও কার্যকর চিকিৎসা প্রদানের ওপর প্রশিক্ষণ দেওয়া হয়েছে।ফলে যক্ষ্মা রোগীদের চিকিৎসা নিতে অন্য কোথাও যাওয়ার আর প্রয়োজন হবে না। নির্ণীত রোগের ভিত্তিতে তাদেরকে দ্রুততার সঙ্গে ও আগের চেয়ে সহজে নির্ধারিত পদ্ধতি অনুযায়ী চিকিৎসা প্রদান করা যাবে। যা যক্ষ্মা রোগকে সফলভাবে পরাস্ত করার সম্ভাবনা বাড়াবে। ইউএসএআইডি-র সহায়তায় জাতীয় যক্ষ্মা নিয়ন্ত্রণ কর্মসূচি আগামী কয়েক বছরের মধ্যে বাংলাদেশে এমন আরও চারটি ওয়ান-স্টপ যক্ষ্মা (টিবি) সেবা কেন্দ্র চালু করবে।রাষ্ট্রদূত মিলার বলেন, আমরা এই চমৎকার ওয়ান-স্টপ যক্ষ্মা সেবা কেন্দ্র চালু করার মাধ্যমে রোগটির বিরুদ্ধে লড়াইরত অনেক মানুষের জীবন রক্ষায় সাহায্য করতে পেরে আনন্দিত। নিজেদের ও পরিবারের সদস্যদের জন্য স্বাস্থ্যকর ও আরও সমৃদ্ধ জীবনের জন্য সংগ্রামরত মানুষদের সাহায্য করা যুক্তরাষ্ট্র ও বাংলাদেশের অভিন্ন লক্ষ্যের অংশ।র‍্যান্ডি আলী বলেন, বহু ওষুধ প্রতিরোধী যক্ষ্মাসহ সব ধরনের যক্ষ্মা (টিবি) পরীক্ষা, নির্ণয় ও চিকিৎসা সেবায় প্রবেশগম্যতা বাড়ানোর ফলে বাংলাদেশে রোগটির নতুন সংক্রমণ প্রতিরোধ করার পাশাপাশি সময়মতো চিকিৎসার মাধ্যমে আরও অনেক মানুষকে সুস্থ করে তুলতে সাহায্য করবে।গত দশ বছরে যুক্তরাষ্ট্র বাংলাদেশে যক্ষ্মা নিয়ন্ত্রণ প্রচেষ্টাকে এগিয়ে নিতে ১০০ মিলিয়ন ডলারের বেশি বিনিয়োগ করেছে।

Side banner