AlokitoBangla
  • ঢাকা মঙ্গলবার, ৩০ নভেম্বর, ২০২১, ১৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৮

অবিশ্বাস্য এক দাবা সেট, হীরা-সাদা সোনা-মুক্তা-নীলকান্তমণি; কি নেই!


FavIcon
আন্তর্জাতিক ডেস্ক:
প্রকাশিত: নভেম্বর ২৩, ২০২১, ০৫:৪৪ পিএম
অবিশ্বাস্য এক দাবা সেট, হীরা-সাদা সোনা-মুক্তা-নীলকান্তমণি; কি নেই!
অবিশ্বাস্য এক দাবা সেট, হীরা-সাদা সোনা-মুক্তা-নীলকান্তমণি; কি নেই!

৫১৩ ক্যারেটের সূক্ষ্ম সাদা হীরা, দক্ষিণ সমুদ্রের মুক্তো আর নীলকান্তমণি, সেই সঙ্গে ১৮-ক্যারেট নিরেট সাদা সোনা।না, আমরা কিন্তু মণিমুক্তাখচিত সুশোভিত কোনো মুকুটের কথা বলছি না। যা কোনো রাজা বা রানির মাথায় শোভা পাবে। অথবা কোনো চলচ্চিত্রের গল্প নয়, যেখানে কোনো ব্যাংকের ভল্টে রাখা এসব মণিমুক্তো কেউ ডাকাতি করে নেওয়ার পাঁয়তারা করবে। এই ঐশ্বর্য একটি বিশ্বমানের শিল্পীর দ্বারা তৈরি করা একটি দাবা সেটের অংশ। এটি বিশ্বের সবচেয়ে ব্যয়বহুল ও মূল্যবান দাবা সেট, যার মূল্য চার মিলিয়ন ডলার। দাবার সেট ও এর ঘুঁটিগুলো এতটাই সুন্দর যে, আপনি এটির দিক থেকে চোখ ফেরাতে পারবেন না।অস্ট্রেলিয়ার শিল্পী কলিন বার্ন এই পার্ল রয়েল চেস সেটটি তৈরি করেছেন। এমন অবিশ্বাস্য সেট মাত্র তিনটি তৈরি করা হবে। আমরা এটা বর্ণনা করতে চাইতেই পারি যে রাজা বা রানি থেকে শুরু করে নিচু প্যান পর্যন্ত প্রতিটি টুকরো- রাতের আকাশে তারার মতো জ্বলজ্বল করে। তবে নিছক সাদাসিধে কোনো শব্দ দ্বারা তা বর্ণনা না করাই ভালো। সৌভাগ্যবশত, আমরা আপনাকে পুরো দাবাবোর্ডটি ভিডিও-আকারে দেখাতে পারি। এই স্বল্পপরিসরের ভিডিওটি শিল্পী নিজেই তৈরি করেছেন। তাঁকে এই ভিডিওটির জন্য ধন্যবাদ।বার্ন এই সেটটি তৈরির জন্য ১৮৪৯ সালের ক্লাসিক স্টাউনটন দাবা সেট থেকে অনুপ্রেরণা নেন। যে ডিজাউনটি প্রায়ই প্রতিযোগিতায় ব্যবহৃত হতো। তিনি তাঁর ওয়েবসাইটে বলেন, আমি একটি রাজকীয় মানসম্পন্ন ও সবচেয়ে সুন্দর দাবা সেট তৈরি করতে চেয়েছিলাম। এটিতে যেন রাজা ও রানির জন্য উপযুক্ত বিশ্বের সবচেয়ে সুন্দর হীরা ও সমৃদ্ধ নীলকান্তমণি ব্যবহার হয়। আমার স্বপ্ন ছিল বিশ্বের সেরা খেলোয়াড়দের লড়াই্ করার জন্য বিশ্বের সেরা দাবা সেট তৈরি করা।২০২১ সালে দুবাইতে অনুষ্ঠিত এফআইডিই বিশ্ব দাবা চ্যাম্পিয়নশিপে বিশ্বের সবচেয়ে ব্যয়বহুল ও চিত্তাকর্ষক দাবা সেটটি প্রথম জনসমক্ষে অবমুক্ত করা হয়।
 

Side banner