AlokitoBangla
  • ঢাকা বুধবার, ২১ ফেব্রুয়ারি, ২০২৪, ৯ ফাল্গুন ১৪৩০
banner

ডেঙ্গুতে আরো ৭ জনের মৃত্যু


FavIcon
আলোকিত বাংলা,প্রতিবেদক:
প্রকাশিত: নভেম্বর ৩০, ২০২৩, ০৭:৪৩ পিএম
ডেঙ্গুতে আরো ৭ জনের মৃত্যু
ডেঙ্গুতে আরো ৭ জনের মৃত্যু

গত ২৪ ঘণ্টায় সারা দেশে ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে আরো সাতজনের মৃত্যু হয়েছে। এতে চলতি বছর ডেঙ্গুতে মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে এক হাজার ৬২২ জনে। এদিন ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে সারা দেশে আরো ৮৭৭ জন হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন।

বৃহস্পতিবার (৩০ নভেম্বর) স্বাস্থ্য অধিদফতরের হেলথ ইমার্জেন্সি অপারেশন সেন্টার ও কন্ট্রোল রুমের ইনচার্জ মো: জাহিদুল ইসলামের সই করা ডেঙ্গুবিষয়ক নিয়মিত প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

এতে বলা হয়, গত ২৪ ঘণ্টায় সারা দেশে ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হওয়া ৮৭৭ জনের মধ্যে ঢাকায় ১৪৪ জন এবং ঢাকা সিটির বাহিরে ৭৩৩ জন। গত ২৪ ঘণ্টায় সারা দেশে মোট ৯৭৮ ডেঙ্গুরোগী হাসপাতাল থেকে ছাড়পত্র পেয়েছেন। এর মধ্যে ঢাকায় বিভিন্ন হাসপাতাল থেকে ২০৭ জন এবং ঢাকা সিটির বাহিরে বিভিন্ন হাসপাতালে থেকে ৭৭১ জন ছাড়পত্র পেয়েছেন।

বিজ্ঞপ্তিতে আরো বলা হয়, গত ২৪ ঘণ্টায় ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে সাতজনের মৃত্যু হয়েছে। এরমধ্যে ৩ জন ঢাকাতে এবং ৪ জন ঢাকা সিটির বাহিরে মারা যান। এ বছর ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে মোট এক হাজার ৬২২ জনের মৃত্যু হয়েছে। এর মধ্যে ঢাকাতে ৯৩৭ জন এবং ঢাকা সিটির বাহিরে ৬৮৫ জন মারা যান।

চলতি বছরের এ পর্যন্ত মোট ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়েছেন তিন লাখ ১১ হাজার ৮৯১ জন। এর মধ্যে ঢাকাতে এক লাখ সাত হাজার ৮৩৬ জন ও ঢাকা সিটির বাহিরে দুই লাখ চার হাজার ৫৫ জন ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়েছেন।

চলতি বছরে এ পর্যন্ত মোট তিন লাখ ছয় হাজার ৭৯০ ডেঙ্গুরোগী হাসপাতাল থেকে ছাড়পত্র পেয়েছেন। এর মধ্যে ঢাকার বিভিন্ন হাসপাতাল থেকে এক লাখ পাঁচ হাজার ৯৯১ জন এবং ঢাকা সিটির বাহিরে বিভিন্ন হাসপাতাল দুই লাখ ৭৯৯ জন ছাড়পত্র পেয়েছেন।

বর্তমানে সারা দেশে মোট তিন হাজার ৪৭৯ ডেঙ্গুরোগী হাসপাতালে ভর্তি আছেন। ঢাকায় ৯০৮ জন এবং ঢাকা সিটির বাহিরে দুই হাজার ৫৭১ রোগী হাসপাতালে ভর্তি আছেন।

২০২২ সালে ডেঙ্গুতে মারা যান ২৮১ জন এবং হাসপাতালে ভর্তি হন ৬২ হাজার ৩৮২ জন। ওই বছর ডিসেম্বরে ২৭ জনের মৃত্যু হয়।

২০২০ সালে করোনা মহামারীকালে ডেঙ্গু সংক্রমণ তেমন একটা দেখা না গেলেও ২০২১ সালে সারাদেশে ডেঙ্গু আক্রান্ত হন ২৮ হাজার ৪২৯ জন। একই বছর দেশব্যাপী ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে ১০৫ জনের মৃত্যু হয়েছিল।

Banner
Side banner
Side banner